1. ratowar1992@gmail.com : Dhaka Helpline : Dhaka Helpline
  2. dhakahelpline52@live.com : Dhaka Helpline : Dhaka Helpline
মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল ২০২১, ০৪:৩৩ পূর্বাহ্ন

মঙ্গল গ্রহে কেন পাঠানো হল পারসিভেয়ারেন্স?

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

নাসা। মার্কিন এই মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠানটির নাম শুনলেই কল্পনায় ভেসে উঠে রকেট,গ্রহ,উপগ্রহ,এলিয়েন সহ নানা খুঁটিনাটি বিষয়। নাসার চন্দ্র অভিযানের পর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অভিযান হচ্ছে মঙ্গল অভিযান।

এ পর্যন্ত নাসা পাঁচটি রোভার পাঠিয়েছে মঙ্গলে। যার মধ্যে সর্বশেষ রভারটি ছিল পারসিভিয়েরেন্স। গত ১৮ই ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ সময় রাত তিনটায় মঙ্গলের মাটিতে স্পর্শ করে এর রভারটি। সাত মাস আগে পৃথিবী থেকে রোভারটি উৎক্ষেপণ করে নাসা। দীর্ঘ সাত মাস ধরে প্রায় ১২৭ মিলিয়ন মাইল পথ পারি দেয় রোভারটি। তবে এর আগে ২০১২ সালে কিওরিওসিটি নামে আরো একটি রোভার মঙ্গলে পাঠানো হয়েছিল। কিউরিসিটি রোভার টি এখনো তার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

সর্বশেষ উৎক্ষেপিত পার্সিভিয়েরেন্স রোভারটি মঙ্গলের মাটি থেকে পাথর সংগ্রহ করবে, সেই সাথে সেখানে কোন প্রাণ এর অস্তিত্ব আছে কি না তা খতিয়ে দেখবে। রোভারটি মঙ্গলে অবতরণ করার পর বেশ কয়েকটি ছবি পাঠিয়েছে পৃথিবীতে।

অবাক করা বিষয়, এ রোভারের সাথে পাঠানো হয়েছে ১টি হেলিকপ্টার।

এই প্রথম ভিন গ্রহে হেলিকপ্টার চালাতে যাচ্ছে নাসা।

তবে সবার মনের মধ্যে একটি প্রশ্ন জাগতে পারে। তা হচ্ছে নাসা কেন এত অর্থ ব্যয় করে ভিন গ্রহে প্রাণের খোজ করছে। এর কারন দিনদিন বসবাসের অযোগ্য হয়ে যাচ্ছে আমাদের এই পৃথিবী। মানব সভ্যতা টিকিয়ে রাখার জন্য ভিন্ন গ্রহে বসবাস করা যায় কিনা এজন্যই অভিযান চালাচ্ছে নাসা।

আচ্ছা এত অর্থ ব্যয় করে ভিন গ্রহে বসবাস না করে নিজেদের গ্রহ পৃথিবীটাকে পুনরায় বসবাসের যোগ্য করে তোলা যায় না? বিজ্ঞানীরা পৃথিবীকে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনার চেষ্টা না করে ভিনগ্রহে কেন বসবাসের চেষ্টা করছে? প্রশ্নটি রইলো আপনার কাছে। আপনার মূল্যবান মতামত কমেন্ট বক্সে জানাতে ভুলবেন না।

Share this Post in Your Social Media

এই ধরনের আরও খবর
Copyright © 2021, Dhaka Helpline. All rights reserved.
Dhaka Helpline developed by 5dollargraphics